কোন ভাড়াটিয়াকে আইনি ভাবে ঘর থেকে তুলে দেওয়ার নিয়ম

What are the rules to vacate a rented house? কোন ভাড়াটিয়াকে আইনি ভাবে ঘর থেকে তুলার নিয়ম | ভাড়াটিয়াকে বাড়ি থেকে তুলে দেওয়ার আইনি নিয়ম | জানুন ভাড়াটিয়াকে আইনি ভাবে ঘর থেকে বের করার নিয়ম।

মানুষ উপার্জনের জন্য বিভিন্ন রকমের পন্থা অবলম্বন করে থাকেন। তার মধ্যে ভারতে ঘর ভাড়া দেওয়ার যে প্রক্রিয়ায় রয়েছে তার মধ্যে দিয়ে বেশিরভাগ মানুষ বেশ ভালো মত টাকা উপার্জন করে থাকেন এবং বলা হয় যে ঘর ভাড়া দেওয়া একটি ভালো লাভজনক ব্যবসা ও বলতে পারেন।

তবে এই ঘর ভাড়া দেওয়ার বিষয়টা খুবই সহজ, সরল থেকে বেশ জটিল অবস্থায় যেতে পারে। এমন ঘটনা নেহাত কম নয়। কোন ভাড়াটিয়া ভালো অবস্থায় ঘর ভাড়া নিয়ে পরবর্তীতে খুবই বদমাশ এবং অনেক রকম অপ্রীতিকর কাজকর্ম দ্বারা ঘর মালিককে সর্বদা বিরক্ত করে থাকেন।

এমনকি সেই ঘর থেকে বেরিয়ে যাওয়ার কথা বলার পরেও সেই ঘর কখনই সেই ভাড়াটিয়া ছেড়ে দিতে রাজি হয় না। সে ক্ষেত্রে ঘর মালিকের অনেকটা হয়রানি পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যেতে হয়। কোন ভাবেই সেই ভাড়াটিয়াকে ঘর থেকে তোলা যায় না।

What are the rules to vacate a rented house
What are the rules to vacate a rented house

এমন অবস্থায় ঘর মালিক যে প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সেই ভাড়াটিয়াকে তুলবেন সেটি খুবই লম্বা এবং বেশ জটিল প্রক্রিয়া। তবুও বলা যেতে পারে যে, ভারতে আইন অনুসারে ঘর মালিক কে তার ভাড়াটিয়ার সমস্ত রকম সুবিধা অসুবিধা দেখভাল করার দায়িত্ব এবং কর্তব্য রয়েছে।

তবে সর্বক্ষেত্রে যে এমনটা হতে পারে তেমনটা কিন্তু নয়। অনেক ভাড়াটিয়া খুবই ভালো, যার জন্য ঘর মালিকের কোনরকম হয়রানিতে পড়তে হয় না।

ভাড়াটিয়াকে ঘর থেকে তুলে দেওয়ার বিভিন্ন রকমের তথ্য:

যদি কোন ভাড়াটিয়া এ সমস্ত কার্যকলাপ গুলি করে থাকেন সেক্ষেত্রে কিন্তু আপনি আইনিভাবে তাকে ঘর থেকে তুলে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট প্রমাণ পত্র পেয়ে যাবেন:-

১) ভাড়া দেওয়ার যে অ্যামাউন্ট রয়েছে প্রতি মাসের নির্দিষ্ট দিনে, সেই দিনের পনেরো দিন পর্যন্ত যদি ভাড়া না দিয়ে থাকে আর এরকম ঘটনা প্রতিনিয়ত হতে থাকে, তাহলে কিন্তু সেই ভাড়াটিয়াকে আপনি আইনিভাবে তুলে দিতে পারবেন।

তবে হ্যাঁ সুবিধা-অসুবিধা প্রতিটি মানুষের মধ্যে থাকে, সেক্ষেত্রে যদি কোনো এক দু মাস ভাড়া দিতে দেরি হয়ে যায়, সে ক্ষেত্রে কিন্তু এটা প্রযোজ্য না-ও হতে পারে। তবে প্রতিমাসে এমনই কার্যকলাপ হয়ে আসে, তাহলে কিন্তু আপনি এমন টা করতে বাধ্য হতে পারেন।

২) ঘর মালিকের লিখিত অনুমতি ছাড়া অন্য কোন ব্যক্তিকে সেই ঘর ভাড়ায় দেওয়া, এমন অপরাধের বিরুদ্ধে আপনি সেই ভাড়াটিয়াকে তুলে দিতে পারেন।

৩) লিখিতভাবে যে সমস্ত বিষয়গুলি উল্লেখিত রয়েছে সেগুলি ছাড়াও যদি সেই ঘর আরো অন্যান্য কাজে ব্যবহার করে থাকেন সেই ভাড়াটিয়া, তাহলে আপনি সেই ভাড়াটিয়াকে ঘর থেকে তুলে দিতে পারেন।

৪) যদি কোনো ভাড়াটিয়া এমন কোন কাজ করে থাকে যেখানে আপনার সম্পত্তির উপরে আঁচ আসতে পারে।

৫) এমন যে কোন উদ্দেশ্য পূরণের জন্য সেই সম্পত্তির ব্যবহার করা, যেটা আইনিভাবে অবৈধ বিবেচনা করা হয়।

৬) এছাড়া ঘর মালিক এর আশেপাশের প্রতিবেশীরা যদি অভিযোগ করে থাকেন যে সেই ঘর মালিকের যে ভাড়াটিয়া রয়েছেন তার দ্বারা তারা বিরক্ত বোধ হচ্ছেন, সে ক্ষেত্রেও এমন ভাড়াটিয়াকে তুলে দিতে পারেন।

৭) তা ছাড়াও অন্য কোন রাজ্য থেকে যদি ভাড়াটিয়া হয়ে থাকেন সেক্ষেত্রে চার মাসের বেশি কোন ঘরে রাখার আইন নেই, তবে যদি সম্পর্ক ভালো হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে রাখা যেতে পারে।

উপরের এই কারণগুলো ছাড়াও ঘর মালিক নিম্নলিখিত এই সমস্ত কারণ গুলির জন্যও ভাড়াটিয়াকে তুলে দিতে পারেন:

১) যদি কোনো ঘর মালিকের কোন ব্যবসা করার জন্য এবং পরিবারের অন্যান্য সদস্যের থাকার জায়গা কম পড়লে সে ক্ষেত্রে ভাড়াটিয়া তুলে দিতে পারেন।

২) যে জায়গাতে ভাড়াটিয়া রয়েছেন সেখানে মেরামত করার জন্য অথবা কোন পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করার ক্ষেত্রে যে খালি করার বিষয়টা লক্ষ্য করা যায়, সে জন্যেও ভাড়াটিয়াকে তুলে দিতে পারেন।

৩) যখন কোন ঘর মালিক অন্য কোন বাড়ি বানাবেন এবং সেক্ষেত্রে পুরনো বাড়ি ভেঙে জায়গা আরো বেশি করতে চাইছেন, এমন পরিস্থিতিতে ভাড়াটিয়া তুলে দিতে পারেন।

ভাড়াটিয়া তুলে দেওয়ার প্রক্রিয়া:

সব সময় যেন একটা কথা মাথায় রাখতে হবে যে, আইন-কানুন কিন্তু ভাড়াটিয়ার সমর্থনে কথা বলে। আর সাধারনত একটি ভাড়াটিয়াকে ঘর থেকে তুলে দেওয়ার জন্য বেশ অনেকটা সময় লাগে এবং তার সাথে বেশ কিছু কারণ ও লাগে।

যে সমস্ত বিষয়গুলির উপরে নির্ভর করে আপনি একটি ভাড়াটিয়া তুলে দিতে পারেন:

একজন উকিল কে নিযুক্ত করতে পারেন:

এক্ষেত্রে যদি ভাড়াটিয়া না উঠতে চান, সে ক্ষেত্রে ভালো একজন উকিল কে নিযুক্ত করে আইনি হিসাব অনুসারে সেই ভাড়াটিয়াকে তুলে দিতে পারেন।

এমন অবস্থায় সমস্ত রকম বিষয়গুলোর উপর আলোকপাত করে ভালোভাবে জেনে বুঝে এবং সেই ভাড়াটিয়াকে বোঝানোর মধ্যে দিয়ে তুলতে পারবেন খুবই সহজ ভাবে। তাছাড়া একজন উকিল কিন্তু ঘর মালিক এর সমস্ত রকম সুবিধা অসুবিধার উপর নির্ভর করে একজন ভাড়াটিয়াকে তুলে দিতে পারেন।

ফাইল করা এবং সূচনা (নোটিশ) দেওয়া:

বেশিরভাগ ক্ষেত্রে মামলার মাধ্যমে একজন ভাড়াটিয়াকে ঘর থেকে বের করে দেওয়ার জন্য উপযুক্ত প্রমাণ পত্র এর সাথে আদালতে অভিযোগ দায়ের করতে হবে, অভিযোগ দায়ের করার পর ভাড়াটিয়াকে আদালত নোটিশ পাঠাবে। যার মধ্যে দিয়ে এই কাজ খুবই সহজ ভাবে সম্পন্ন হয়ে যাবে।

ভাড়াটিয়া কে ঘর থেকে তুলে দেওয়ার জন্য লম্বা সময় অথবা প্রক্রিয়া থেকে বাঁচার উপায়:

কোন ঘর মালিকের ঘর থেকে ভাড়া নেওয়া ভাড়াটিয়াকে তুলে দেওয়ার জন্য বেশ অনেকটা সময় অতিবাহিত করতে হয়। কমপক্ষে ১১ মাসের চুক্তি হয়ে থাকে ঘর মালিক ও ভাড়াটিয়া এর মধ্যে। কমপক্ষে ১১ মাসের এগ্রিমেন্ট বানানো হয়ে থাকে।

তারপর আবার ১১ মাস পরে নতুন করে এগ্রিমেন্ট হয়ে থাকে। এর মধ্যে দিয়ে যদি কোন সমস্যা তৈরি হয় তাহলে ঘর মালিকের অসুবিধা হবে না, সেই ভাড়াটিয়াকে তুলে দেওয়ার জন্য অথবা সে ক্ষেত্রে অনেকটা লম্বা সময় অতিবাহিত করতে হবে না।

কোন সমস্যা দেখা দিলে ১১ মাস পর নতুন এগ্রিমেন্ট তৈরি না করে সেই ভাড়াটিয়াকে অনায়াসেই তুলে দিতে পারবেন অথবা ঘর থেকে চলে যেতে বলতে পারবেন / ঘর খালি করে দিতে বলতে পারবেন।

তো নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন যে, কিভাবে বিভিন্ন রকম সমস্যার উপর ভিত্তি করে একটি ভাড়াটিয়াকে একজন ঘর মালিক তাঁর ঘর থেকে ঘর খালি করে বের হয়ে যাওয়ার জন্য বলতে পারেন।

তবে আইন অনুসারে সমস্ত রকম নিয়ম কানুন মেনে তবেই এমন পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন। যদি ভাড়াটিয়া খুবই বদমাশ প্রকৃতির হয়ে থাকেন, তাহলে ভালো উকিলের সাথে যোগাযোগ করুন। যে উকিল খুবই সহজ ভাবে আইনি নিয়মকানুন অনুসারে আপনার ঘর অনায়াসেই খালি করে দিতে পারবেন সেই ভাড়াটিয়ার থেকে।

Leave a Comment