পশ্চিমবঙ্গ কর্মই ধর্ম প্রকল্প 2022 আবেদন ও যোগ্যতা | WB Karmai Dharma Scheme 2022: Apply Online, Registration

West Bengal Karmai Dharma Scheme 2022 (কর্মই ধর্ম প্রকল্প 2022) | পশ্চিমবঙ্গ কর্মই ধর্ম প্রকল্প অনলাইনে আবেদন করুন | কর্মই ধর্ম প্রকল্প রেজিস্ট্রেশন ফর্ম | পশ্চিমবঙ্গ কর্মই ধর্ম প্রকল্পের জন্য যোগ্যতা

কর্মের মধ্যে দিয়ে আমাদের জীবনযাত্রা অতিবাহিত হয়। সে তো আমরা সকলেই জানি। তাই তো অনেকের মুখেই বলতে শোনা যায় যে, “কর্মই ধর্ম।” পৃথিবীতে বেঁচে থাকার জন্য, দৈনন্দিন জীবনের সমস্ত রকম চাহিদা পূরণের জন্য, আমাদের সবথকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ যে জিনিসটি প্রয়োজন হয়, সেটা হল রোজগার। আর এই রোজগার হয় কর্ম করার মধ্যে দিয়ে, যে কোনো কর্ম হতে পারে।

আর তাইতো পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দাদের কথা চিন্তা করে কাজের উপর ভিত্তি করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অর্থাৎ রাজ্যের মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একটি নতুন প্রকল্প চালু করেছেন যার নাম “কর্মই ধর্ম প্রকল্প (Karmai Dharma Scheme)।”

এই প্রকল্পের মধ্যে দিয়ে ২,০০,০০০ এর বেশি যুবককে সমবায় ব্যাংকের সহায়তায় একটি করে মোটরবাইক দেওয়া হবে, বেকারত্বের সমস্যা কে একেবারে মুছে ফেলার জন্যই এই উদ্যোগ নিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নতুন উদ্যোগ এই কর্মই ধর্ম প্রকল্প (Karmai Dharma Scheme) টি যুবক-যুবতী ছেলেমেয়েদের মধ্যে এক আশার আলো জ্বালিয়েছে। যেখানে দু’লাখ এর বেশি ছেলেমেয়েকে একেবারে বিনামূল্যে মোটরবাইক অথবা স্কুটার দেওয়া হবে। যার মধ্যে দিয়ে যে কোন কর্ম জীবন বেছে নিয়ে তার মধ্যে দিয়ে বেকারত্ব ঘোচানোর একটি সুন্দর রাস্তা তৈরি করতে চাইছেন মুখ্যমন্ত্রী।

পশ্চিমবঙ্গ কর্মই ধর্ম প্রকল্প আবেদন - WB Karmai Dharma Scheme
পশ্চিমবঙ্গ কর্মই ধর্ম প্রকল্প আবেদন – WB Karmai Dharma Scheme

গ্রাম বাংলার বেকার ছেলে মেয়েদের কর্মসংস্থানের লক্ষ্য নিয়েই এই প্রকল্প প্রণয়ন করা হয়। তাছাড়া তিনি বলেন যে, যারা মাছ বিক্রি করেন, তারা অনেকেই সাইকেলে করে মাছ নিয়ে যান, পিছনে মাছের ঠান্ডা বাক্স থাকে।

যদি মোটর সাইকেলে করে নিয়ে যাওয়া হয় সেক্ষেত্রে তাদের কষ্ট অনেকটাই কম হবে, আর ব্যবসাতে উন্নতি লাভ করতে পারবেন। তাছাড়া কোনো কাজই খারাপ নয় অথবা ছোট নয়। যেকোনো কাজ মন দিয়ে, পরিশ্রম দিয়ে এবং নিষ্ঠাভরে করতে পারলেই তা দিয়েই কিন্তু অনেকটা লাভবান হওয়া যেতে পারে।

দু’লক্ষ ছেলেমেয়েদের মোটরসাইকেল দেওয়া মানে শুধু মাত্র দু লক্ষ ছেলে-মেয়ের কর্মসংস্থান করাই কিন্তু উদ্দেশ্য নয়, এই কর্মসংস্থানের মধ্যে দিয়ে প্রায় ১০ লক্ষ মানুষের অন্নসংস্থান হতে পারে। বলতে গেলে সেই পরিবারের অভাব-অনটন অনেকটাই চলে যাবে।

পশ্চিমবঙ্গ কর্মই ধর্ম প্রকল্প:

বিভিন্ন রকমের প্রকল্প এসেছে রাজ্যে, বর্তমানে আরো অনেক প্রকল্প রয়েছে। যেমন ধরুন দুয়ারে ত্রাণ, দুয়ারে রেশন, সামাজিক সুরক্ষা যোজনা স্বাস্থ্যসাথী, খাদ্যসাথী, আরো অনেক কিছু।

আর বিভিন্ন প্রকল্পের টাকা আবেদন কারীদের ব্যাংকে জমা হতে শুরু করে দিয়েছে। এর সাথে সাথে এই কর্মই ধর্ম প্রকল্প টি খুব তাড়াতাড়ি বাস্তবায়িত হবে আশা করা যায়।

কর্মই ধর্ম প্রকল্পে আবেদন করবেন কিভাবে:

এই প্রকল্পের আবেদন করতে গেলে বেশ কিছু পদক্ষেপ আপনাকে অবলম্বন করতে হবে, যদি অনলাইনে আবেদন করেন তো:-

Step 1. সবার প্রথমে কর্মই ধর্ম প্রকল্পের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট এ আপনাকে ভিজিট করতে হবে, https://wb.gov.in/

Step 2. এরপর আপনি এই ওয়েবসাইটের হোমপেজে চলে আসবেন, সেখানে এপ্লাই অনলাইন (Apply Online) বাটনটিতে ক্লিক করুন।

Step 3. যে নতুন ওয়েব পেজ ওপেন হবে, সেখানে এই প্রকল্পের আবেদন করার জন্য অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম পাবেন।

Step 4. সেই অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম টিতে সমস্ত রকম প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস, আরো অন্যান্য তথ্য বিস্তারিত লিখুন এবং চাহিদা অনুযায়ী নথি পত্র গুলো আপলোড করুন এই সাইটে।

Step 5. তারপর সব কিছু চেক করে নিন, কোন ভুল ত্রুটি আছে কিনা, এরপর সাবমিট (Submit) বাটনে ক্লিক করুন। কর্মই ধর্ম প্রকল্পে আপনার আবেদনটি সফল হয়েছে।

পশ্চিমবঙ্গ দুয়ারে সরকার প্রকল্প:

দুয়ারে ত্রাণ, দুয়ারে শিবির, এই সমস্ত প্রকল্পের মাঝে দুয়ারে পশ্চিমবঙ্গ সরকার যোজনার কথা জানা যায়। এই প্রকল্পের আওতায় প্রশাসন ব্লক গুলিতে শিবির স্থাপন করবে, সেখান থেকে আধিকারিকরা মানুষের সমস্ত রকম সমস্যার সমাধান করবেন।

এছাড়া তথ্য অনুসারে জানা গিয়েছে যে, ১১ দিনে রাজ্যের ৭,২২৪ টি ক্যাম্প থেকে প্রায় ৬৪ লক্ষ ২৭ হাজার ৯৯১ জন আবেদন করেছেন এই প্রকল্পে। এই প্রকল্পের মোট ১০ পরিষেবা কেও গুরুত্ব দেয়া হবে বিশেষভাবে। যেগুলির সুযোগ-সুবিধা দিতে জনগণের কাছে পৌঁছে যাবে সরকার, আর তাই এই প্রকল্পের নাম “পশ্চিমবঙ্গ  দুয়ারে সরকার (Duare Sarkar)।”

কর্মই ধর্ম প্রকল্পের সম্পূর্ণ প্রয়োগ প্রক্রিয়া সম্পর্কিত বিভিন্ন রকম তথ্য কেবলমাত্র এর আনুষ্ঠানিক প্রবর্তনের পরে পাওয়া যাবে।

কর্মই ধর্ম প্রকল্পে আবেদনের জন্য প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস:

  • পরিচয় পত্র।
  • ঠিকানার প্রমাণপত্র।
  • আবেদনকারীর পাসপোর্ট সাইজের ফটো।
  • আধার কার্ড।
  • মাধ্যমিক পাশের মার্কশিট।
  • উচ্চ মাধ্যমিক পাশের মার্কশিট।
  • শিক্ষাগত যোগ্যতার সার্টিফিকেট।
  • পরিবারের রোজগারের অর্থাৎ আয়ের প্রমাণপত্র।
  • ভোটার আইডি কার্ড ইত্যাদি।

অনেক যুবক-যুবতী ছেলে মেয়েরা নিজেদের পায়ে দাঁড়ানোর উদ্দেশ্যে, স্বাবলম্বী হওয়ার জন্য বিভিন্ন রকমের কর্ম সংস্থানের সন্ধান করে থাকেন। আবার অনেকেই খুবই দক্ষতার সাথে ফল, সবজি, শাড়ি বিক্রি করা এবং আরো অন্যান্য জিনিসপত্র বিক্রি করার পরিকল্পনা করে থাকেন। কিন্তু বেশিরভাগ ক্ষেত্রে যানবাহনের জন্য অনেকটা সমস্যায় পড়তে হয় তাদের। তবে এই কর্মই ধর্ম প্রকল্পের মধ্যে দিয়ে যে ২ লক্ষ যুবক যুবতীর ছেলেমেয়েদের মোটর বাইক অথবা স্কুটি দেওয়া হবে, তার ফলে এই সমস্ত ব্যবসা গুলি খুবই সহজ ভাবে তারা করতে পারবেন।

এছাড়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেছেন যে, দেশে করোনা পরিস্থিতিতে ৪০% বেকারত্ব বেড়েছে, তবে বাংলায় ৪০% বেকারত্ব কমেছে। তাঁর বক্তব্য অনুসারে এই রাজ্যে কোন সরকারি কর্মচারীদের বেতনের কম করেননি বা বেতন বাকি থাকে নি, বাইরে থেকে আসা পরিযায়ী কর্মীদের এখনো এখানে  অনেকেই কাজ পেয়েছেন বলেও দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী।

এই প্রকল্পের মধ্যে দিয়ে বিভিন্ন রকমের উদ্যোক্তা তাদের ব্যবসাটিকে বাস্তবায়িত করতে পারবেন। তার সাথে আরও অন্যান্য ক্ষুদ্র ব্যবসা শুরু করতে পারবেন। বহু বেকার মানুষ এই কর্মই ধর্ম প্রকল্পের মধ্যে দিয়ে যে কর্মসংস্থান হবে, সেটা পরিবারের অন্নসংস্থান করবে ভালোভাবে, আশা করা যায়।

তবে এখনও পর্যন্ত যদি কেউ এই প্রকল্পে আবেদন করে না থাকেন, তাহলে উপরে আবেদন পদ্ধতি অবলম্বন করে খুবই সহজ ভাবে এই কর্মই ধর্ম প্রকল্পে (Karmai Dharma Scheme) আবেদন করতে পারবেন, নিজের স্মার্টফোনের মাধ্যমে ঘরে বসে অনলাইনে।

Home Click here
Official Website Click here

Leave a Comment