2022 ইন্ডিয়ান ব্যাংক বাইক লোন আবেদন পদ্ধতি | 2022 Indian Bank Two Wheeler Loan in Bengali

Indian Bank Two Wheeler Loan 2022 (ইন্ডিয়ান ব্যাংক বাইক লোন 2022): How to Apply for Indian Bank Two Wheeler Loan? | Indian Bank Two Wheeler Loan Apply in Bengali| Indian Bank Bike Loan Apply in Bengali.

টু হুইলার অথবা বাইক নিজের প্রয়োজনে হোক অথবা শখের বশে, এখন বলতে গেলে প্রায় প্রতিটি ঘরেই দেখা যায়। তবে তার মধ্যে এমন অনেকেই আছেন যাদের অনেকদিন থেকে বাইক কেনার ইচ্ছা অথচ পর্যাপ্ত পরিমাণ টাকার অভাবে সেই ইচ্ছে টাকে দমিয়ে রেখেছেন।

বাইক যেমন কোন জায়গায় যাওয়ার জন্য অনেকটা সময় বাঁচায়, তার সাথে বিভিন্ন রকম ব্যক্তিগত কাজে ব্যবহার করাও যায়। আবার অনেকেই আছেন বাইকের ভীষন শখ, রাস্তা থেকে বাইক গেলে বাইক প্রেমীরা একঝলক তাকাবেন না এমনটা হতেই পারে না। তার উপরে যদি হয় সেটা নিজের পছন্দের কোন বাইক।

Bank NameIndian Bank
Type of LoanTwo Wheeler Loan / Bike Loan
Loan Application ProcessOnline / Offline
Official Websiteindianbank.net.in

তবে আজকাল বাইক অথবা টু হুইলার এর জন্য বেশ কিছুটা টাকা আপনার প্রয়োজন পড়ে। প্রতিমাসে ই এম আই দিয়ে বাইক নিলেও তবুও তো কিছুটা টাকা আপনাকে ডাউন পেমেন্ট করতেই হয়, তাই না! আর সেই টাকাটাই যদি আপনার কাছে না থাকে তাহলে বাইক কেনা একেবারেই সম্ভব নয়।

ইন্ডিয়ান ব্যাংক বাইক লোন আবেদন পদ্ধতি | Indian Bank Two Wheeler Loan in Bengali
ইন্ডিয়ান ব্যাংক বাইক লোন আবেদন পদ্ধতি | Indian Bank Two Wheeler Loan in Bengali

তবে আপনি যদি মনে করেন ইন্ডিয়ান ব্যাংক টু হুইলার লোন (Indian Bank Two Wheeler/ Bike Loan) নিতে পারেন। যেখানে খুবই কম এবং আকর্ষণীয় সুদের হার, বাইক এবং সুপার বাইক এর ক্ষেত্রে। প্রতিমাসে খুবই কম ই এম আই হিসেবে আপনি অনেকটা সময় পাবেন এই লোন পরিশোধ করার জন্য।

তো চলুন তাহলে জানা যাক, কিভাবে আপনি ইন্ডিয়ান ব্যাংক টু হুইলার অথবা বাইক লোনের জন্য আবেদন করবেন এবং এই লোন সম্পর্কিত আরো অন্যান্য তথ্য সম্পর্কেও জানা যাক:

ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্ক টু হুইলার লোন 2022 (Indian Bank Two Wheeler Loan 2022/ Bike Loan):

ইন্ডিয়ান ব্যাংক বলতে গেলে অনেকটাই পুরনো যা কিনা ১৯০৭ সালে প্রতিষ্ঠিত। আর এই লোন খুবই কম এবং আকর্ষনীয় সুদ দিয়ে বাইক লোন দিয়ে থাকে। তাছাড়া যদি কোন ব্যক্তি ইন্ডিয়ান ব্যাংকের স্টাফ হয়ে থাকেন, সেক্ষেত্রে সুদের হারে অনেকটাই ছাড় পেতে পারেন। তাছাড়া মেয়েদের জন্য সুদের ক্ষেত্রে ছাড় তো রয়েছেই।

ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্ক বাইক লোন নেওয়ার সুবিধা এবং লাভ:

১) নতুন বাইক কেনার জন্য ইন্ডিয়ান ব্যাংক বাইক লোন দিয়ে থাকে।

২) এই লোনের জন্য বেতনভুক্ত কর্মচারী, প্রফেশনাল, ব্যবসায়ী, Self-employed, ইন্ডিয়ান ব্যাংক এর স্টাফ, NRIs, আবেদন করতে পারবেন।

৩) সর্বোচ্চ লোন এমাউন্ট বাইক কেনার জন্য ১০ লাখ টাকা।

৪) নতুন বাইকের ক্ষেত্রে মার্জিন হিসেবে ১৫% নিয়ে থাকে।

৫) বাইক লোন আপনি সর্বোচ্চ ৬০ টি ই এম আই দিয়েও পরিশোধ করতে পারেন।

১) সুদের হার: ১০.৩৫%

২) সর্বোচ্চ লোন এমাউন্ট: ১০ লাখ টাকা আবার যে বাইকটি আপনি নিতে চাইছেন সেই বাইকের অন রোড প্রাইস এর ৮৫% দিয়ে থাকে।

৩) লোন পরিশোধের সময়সীমা: ৬০ মাস অর্থাৎ সর্বোচ্চ পাঁচ বছর পর্যন্ত।

৪) সর্বনিম্ন ই এম আই (EMI): ১০ হাজার টাকার উপরে ২১৪ টাকা।

৫) প্রসেসিং ফি: ৩% লোন এমাউন্ট এর উপরে।

৬) রি পেমেন্ট চার্জ: লোন পরিশোধের সময় কোন রকম চার্জ নেয় না, ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্ক।

৭) আবেদনকারীর বয়স: ইন্ডিয়ান ব্যাংক বাইক লোন নেওয়ার জন্য আবেদনকারী অবশ্যই সর্বনিম্ন ২১ বছর থেকে ৬৫ বছর বয়সের মধ্যে হতে হবে।

Indian Bank Bike Loan 2022 (ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্ক বাইক লোন 2022)

আবেদনকারীর যে বিষয়গুলি ইন্ডিয়ান ব্যাংক বাইক লোন নেওয়ার জন্য অনেকটাই সহযোগিতা করতে পারে:

১) আবেদনকারীর বেতন: অর্থাৎ আপনার মাসিক বেতন যদি বেশ ভাল অঙ্কের হয়ে থাকে, সেক্ষেত্রে এই লোনের জন্য আপনি অগ্রাধিকার পেতে পারেন, অর্থাৎ ব্যাংক আপনার মাসিক বেতনের উপর নির্ভর করে সুদের হার নির্ধারণ করবে এবং এই বাইক লোন টি অ্যাপ্রুভ করবে।

২) কর্মচারীর ধরন: নিশ্চয়ই আপনি কোন না কোন কাজ করে থাকেন, সেক্ষেত্রে আপনি যদি মহিলা হয়ে থাকেন এই লোন এর আবেদনের ক্ষেত্রে সুদ এর জন্য অনেকটাই ছাড় পাবেন।

৩) বাইক এর ধরন: আপনি যে রকম বাইক নিতে চাইছেন সেই বাইক এর উপরেই নির্ভর করে ব্যাংক সুদের হার নির্ধারণ করবে। যেমন ধরুন- আপনি যদি টু হুইলার নিতে চান, তার জন্য আলাদা রকমের সুদ দিতে হবে আপনাকে, আর যদি আপনি সুপার বাইক এর ক্ষেত্রে লোন নিতে চান তাহলে সুদের হার অনেকটাই কমে আসতে পারে।

৪) ব্যাংকের সাথে যোগাযোগ ব্যবস্থা: এক্ষেত্রে যদি আপনার ইন্ডিয়ান ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট থাকে, আবার আগে কোন বিষয়ের ক্ষেত্রে লোন নিয়ে থাকেন এবং সময়সীমার মধ্যে পরিশোধ করে থাকেন, সেক্ষেত্রে আপনার ব্যাংকের সিভিল স্কোর (CIBIL Score)  অনেকটাই ভালো থাকবে আর এর মধ্যে দিয়ে এই বাইক লোন টি আপনি অনায়াসেই পেতে পারেন।

Indian Bank Two Wheeler Loan আবেদনকারীর কাগজপত্র:

ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্ক বাইক লোন অথবা টু হুইলার লোন এর জন্য আবেদনকারীর যে সমস্ত কাগজ পত্রের প্রয়োজন পড়বে সেগুলি হল:

১) সম্পূর্ণ ফিলাপ করা এবং আবেদনকারীর সই করা লোন অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম।

২) পরিচয় পত্র হিসেবে- প্যান কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স, পাসপোর্ট, ভোটার আইডি কার্ড।

৩) ঠিকানার প্রমাণপত্র হিসাবে- টেলিফোন বিল, ইলেকট্রিসিটি বিল, ভোটার আইডি কার্ড, পাসপোর্ট।

৪) আবেদনকারীর পাসপোর্ট সাইজের ফটোগ্রাফ।

৫) লাস্ট ৩ বছরের ইনকাম ট্যাক্স রিটার্ন, ফর্ম 16।

৬) ব্যবসার ঠিকানার প্রমাণপত্র, শুধুমাত্র ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে।

৭) স্যালারি স্লিপ, তার সাথে ব্যাংকের স্টেটমেন্ট।

৮) আর অবশ্যই এই লোনের জন্য আবেদনকারীর মাসিক ইনকাম কমপক্ষে ২০ হাজার টাকা হতে হবে।

৯) তার সাথে সাথে আপনার ব্যাংকের সিভিল স্কোর (CIBIL Score) অবশ্যই ভালো থাকতে হবে। যেমন ধরুন ৬৫০+ থেকে ৭৫০+ এর মধ্যে হলেই এই লোনের জন্য বেশ সুবিধাজনক।

এবার জানা যাক কিভাবে ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্ক টু হুইলার লোনের আবেদন করবেন?

ইন্ডিয়ান ব্যাংক থেকে আপনি দুই রকম ভাবে টু হুইলার অথবা বাইক লোনের জন্য আবেদন করতে পারেন প্রথমত অনলাইনে, দ্বিতীয়ত অফলাইনে।

Indian Bank Two Wheeler Loan অনলাইন আবেদন:

Step 1. প্রথমত আপনাকে ইন্ডিয়ান ব্যাংকের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে ভিজিট করতে হবে, https://www.indianbank.net.in/ অথবা https://www.indianbank.in/ এই ওয়েবসাইটের মধ্যে দিয়েও আপনি বাইক অথবা টু হুইলার লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন ইন্ডিয়ান ব্যাংক থেকে।

Step 2. তারপর লোন (Loan) অপশনে গিয়ে টু হুইলার লোন (Vehicle Loan/ Two Wheeler Loan) এর উপরে ক্লিক করুন। তারপর আপনার সামনে একটি নতুন পেজ ওপেন হবে, সেখানে এ্যাপলাই নাও (Apply Now) অপশনটিতে ক্লিক করুন।

Step 3. তবে অবশ্যই এই লোনের জন্য যে সমস্ত যোগ্যতার প্রয়োজন, সেগুলো আপনার আছে কি না একবার যাচাই করে নেবেন, তারপরেই এপ্লাই করবেন।

Step 4. এবার দেখবেন আপনার সামনে একটি লোন অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম (Indian Bank Two Wheeler Loan Apply Form) ওপেন হবে, অ্যাপ্লিকেশন ফর্ম টি প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলি দিয়ে ভালোভাবে গুছিয়ে ফিলাপ করুন। তার সাথে প্রসেসিং চার্জ হিসেবে যেটা চেয়ে থাকবে সেটা আপনাকে দিতে হবে।

Step 5. সবকিছু ভালোভাবে ফিলাপ করে নেওয়ার পর ভালোভাবে চেক করে নিতে হবে, কোথাও কোন ভুল হয়েছে কিনা, তারপরে সাবমিট (Submit) বাটনে ক্লিক করুন।

Step 6. এরপর ইন্ডিয়ান ব্যাংক আপনার অ্যাপ্লিকেশন টি ভেরিফাই করবে এবং কোন রকম অসুবিধা যদি না থাকে, তাহলে খুব তাড়াতাড়ি বাইক লোন টি অ্যাপ্রুভ হয়ে যাবে।

Indian Bank Two Wheeler Loan অফলাইন আবেদন:

তাছাড়া আপনি ইন্ডিয়ান ব্যাংক টু হুইলার অথবা বাইক লোন নেওয়ার জন্য অফলাইনেও আবেদন করতে পারেন। সে ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস গুলো নিয়ে আপনার কাছাকাছি ইন্ডিয়ান ব্যাংকের যে কোন ব্রাঞ্চে গিয়ে বাইক লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন।

তো এভাবেই খুবই সামান্য ডকুমেন্টেশনের মধ্যে দিয়ে সহজ কিছু পদক্ষেপ অবলম্বন করে ইন্ডিয়ান ব্যাংক বাইক অথবা টু হুইলার লোনের জন্য আবেদন করতে পারবেন। আর প্রতিমাসে খুবই কম ইএমআই বাবদ এই লোন পরিশোধ করতেও পারবেন। তাতে আপনার অনেকদিনের বাইক কেনার  স্বপ্ন পূরণ হতে পারে।

HomeClick here
Official WebsiteClick here

FAQ for Indian Bank Two Wheeler Loan

ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্ক বাইক লোন নেওয়ার জন্য লোন পরিশোধের সময়সীমা কতটা?

ইন্ডিয়ান ব্যাংক থেকে বাইক অথবা টু হুইলার লোন নেওয়ার জন্য লোন পরিশোধের সময়সীমা সর্বোচ্চ পাঁচ বছর (5 Years) পর্যন্ত আপনি হাতে পাবেন।

ইন্ডিয়ান ব্যাংক বাইক লোনের জন্য কত সুদ নিয়ে থাকে?

ইন্ডিয়ান ব্যাংক বাইক লোনের ক্ষেত্রে সুদের হার ১০.৩৫% থেকে ১০.৫০% পর্যন্ত।

ইন্ডিয়ান ব্যাংক টু হুইলার লোনের সর্বোচ্চ লোন এমাউন্ট কতটা?

ইন্ডিয়ান ব্যাংক টু হুইলার লোনে সর্বোচ্চ ১০ লাখ টাকা, আবার আপনি যে বাইকটি নিতে চাইছেন সেই বাইকের ৮৫% অন রোড প্রাইস হিসাবে আপনি লোন পেতে পারেন।

ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্ক টু হুইলার লোন নেওয়ার জন্য প্রসেসিং চার্জ কত?

ইন্ডিয়ান ব্যাংক থেকে টু হুইলার অথবা বাইক লোন নেওয়ার জন্য প্রসেসিং চার্জ হিসাবে ৩% নিয়ে থাকে।

Leave a Comment