নিজের নাম পরিবর্তন করার আইনি নিয়ম ও পদ্ধতি

How to Legally Change Your Name in Bengali: নিজের নাম পরিবর্তন করবেন কিভাবে? নিজের নাম পরিবর্তনের আইনি নিয়ম | আইন অনুসারে নিজের নাম পরিবর্তন করার পদ্ধতি | কিভাবে নিজের নাম পরিবরত্ন করবেন জানুন সঙ্গে জানুন নাম পরিবর্তনের আইনি নিয়ম।

কোন ব্যক্তির পরিচয়ের ক্ষেত্রে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে সেই ব্যক্তির নাম। যদি কোন ব্যক্তির নাম ধরে ডাকা হয়, তাহলে তিনি ঘুরে তাকাতে অথবা সাড়া দিতে বাধ্য, কেননা তার পরিচয় সে নামের মধ্যে রয়েছে।

যদি আমরা কোন মানুষের সাথে কথা বলি, তাহলে সবার প্রথমে তার নাম নিয়েই কিন্তু সম্মোধন করে থাকি। আর আমাদের দেশে এমন একটি রীতি নীতি রয়েছে কোন ব্যক্তির এক বা একের অধিক নাম থেকে থাকে।

কেননা সেই ব্যক্তির ছোটবেলায় অনেক বয়স্ক গুরুজন ছোট ছোট কিছু নামে আদর করে ডেকে থাকেন। সেই নাম বড় হওয়ার সাথে সাথে রয়েই যায়।

আর এই কারণে অনেকেই নিজের নাম সঠিক ভাবে কাগজপত্রে রাখার জন্য আইনি নিয়ম অনুসারে নাম বদল করে থাকেন। তখন সমস্ত কাগজপত্র একটাই নাম থেকে যায়।

কিছু মানুষ এমনটা ভেবে থাকেন যে, নাম বদলানোর জন্য বিভিন্ন রকমের সমস্যার সম্মুখীন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কিন্তু এমনটা ভাবার কোন কারণ নেই। কেননা খুবই সহজ ভাবে আইনি পদ্ধতিতে আপনি আপনার নাম অনায়াসেই পরিবর্তন করতে পারবেন। এক্ষেত্রে বেশিরভাগ মানুষ একটি মাত্র নাম রেখে থাকেন।

নাম পরিবর্তন করার আইনি নিয়ম ও পদ্ধতি - Laws for Legally Change Your Name
নাম পরিবর্তন করার আইনি নিয়ম ও পদ্ধতি – Laws for Legally Change Your Name

নিজের নাম পরিবর্তন করার কথা তখনই হতে পারে, যখন কোন কাগজপত্রে নামের সাথে সাথে উপাধি এবং বলতে গেলে সম্পূর্ণ নাম পরিবর্তন করার জন্য সমস্ত রকম কাগজপত্রে একই রকম নাম রাখার ক্ষেত্রে নাম পরিবর্তনের বিষয়টি আপনার জন্য প্রযোজ্য হতে পারে।

যেমন ধরুন সমস্ত রকম কাগজপত্রে আপনার পরিচয় পত্রে বিভিন্ন রকমের ডকুমেন্টস এ জন্ম তারিখ থেকে শুরু করে নামের বানান, একই রকম নাম, পদবী থাকাটা জরুরি। আর সেই কারণেই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে মানুষ নিজেদের নাম পরিবর্তন করার সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন। যেখানে সমস্ত রকম কাগজপত্রে একই রকম নাম থাকবে।

নিজের নাম পরিবর্তনের জন্য নিম্নলিখিত এই বিষয়গুলি আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে:

ভারতে নাম পরিবর্তন করার জন্য বিশেষভাবে যে তিনটি অনিবার্য বিষয়, নাম পরিবর্তনের ক্ষেত্রে অবশ্যই প্রয়োজনীয় সেগুলি হল:-

১) শপথ পত্র প্রস্তুত করা: নাম পরিবর্তনের জন্য আপনাকে একটি হলফনামা তৈরি করতে হবে।

২) বিজ্ঞাপন প্রকাশন: নাম পরিবর্তনের ক্ষেত্রে ঘোষণা এবং সংবাদপত্রে প্রকাশিত হতে হবে।

৩) রাজপত্র অধি সূচনা: নাম পরিবর্তন সম্বন্ধে ভারতের রাজপত্র তে একটি অধি সূচনা প্রকাশিত করা অবশ্যই প্রয়োজন।

Affidavit / এফিডেভিট (হলফনামা):

নিজের নাম পরিবর্তন করার জন্য ম্যাজিস্ট্রেট এর থেকে নিজের সম্বন্ধিত জেলা বিচারালয় হলফনামা প্রস্তুত করতে হবে। হলফনামা তে বর্তমান নাম, আর যে নাম আপনি পরিবর্তন করে রাখবেন সেই নাম এর উল্লেখ থাকতে হবে।

তার সাথে সাথে নাম পরিবর্তন করার কারণটাও কিন্তু সম্পূর্ণ পরিষ্কার ভাবে উল্লেখ করতে হবে। হলফনামা অথবা এফিডেভিট ন্যূনতম মূল্যের স্ট্যাম্প পেপারে বানাতে হবে।

যদি বিদেশে রয়েছে এমন ব্যক্তি যিনি ভারতীয়, সে ক্ষেত্রে নামবদলের নির্বাচন করার জন্য এমন পরিস্থিতিতে সেই ব্যক্তিকে নাম পরিবর্তন সম্বন্ধিত বিভাগ ভারতীয় দূতাবাস দ্বারা যে ফর্ম দেওয়া হয় সেই ফরম ফিলাপ করে জমা করতে হবে।

এর জন্য ১০ টাকার স্ট্যাম্প পেপার এর উপর একটি হলফনামা তৈরি করতে হবে আর তৈরি হয়ে যাওয়ার পর সেটিকে নিজের কাছাকাছি আদালতে জমা করতে হবে।

এই বিষয়ে বেশ কিছু বিষয় নিম্নলিখিত আলোচনা করা হলো:

১) আপনার বর্তমান নাম এবং যে নাম আপনি রাখতে চাইছেন, সেই দুটি নাম অবশ্যই উল্লেখ করতে হবে।

২) আপনার বর্তমান স্থায়ী ঠিকানা।

৩) নাম পরিবর্তনের কারণ গুলি খুবই সংক্ষেপে বর্ণনা করতে হবে।

এরপর এ সমস্ত কাগজপত্র গুলি সম্পাদন করার মধ্যে দিয়ে আপনার কাজ সম্পন্ন হবে যাতে কমপক্ষে ১০০ থেকে ২০০ টাকা পর্যন্ত খরচ হতে পারে। যখন হলফনামা তৈরি হয়ে যাবে সেই হলফনামা তে আপনার স্বাক্ষর অথবা সই করতে হবে।

তার সাথে সাথে আপনার সাথে দুজন সাক্ষীর প্রয়োজন পড়বে। যদি আপনি কেন্দ্র সরকারের অধিনে চাকরি করেন, তাহলে নাম পরিবর্তনের জন্য একটির নাম পরিবর্তনের দলিল তৈরি করতে হতে পারে।

সংবাদ পত্রে প্রকাশিত করা:

যদি আপনি শপথপত্র তৈরি করে নেন, তারপর পরবর্তী পদক্ষেপ হলো আপনাকে সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপন অধি সূচনা প্রকাশিত করতে হবে, যে আপনি আপনার নাম বদল করেছেন আর আজকের পর থেকে আপনার যে নতুন নাম পরিবর্তন করে রেখেছেন সেই নামে সকলেই চিনবেন।

এর জন্য আপনাকে দুটি সংবাদ পত্রের প্রয়োজন পড়বে যার মধ্যে একটি আপনার রাজ্যের আধিকারিক ভাষায় প্রকাশিত হবে, আর দ্বিতীয়টি হল ইংরেজি ভাষায় প্রকাশিত করতে হবে।

কিন্তু খেয়াল রাখতে হবে যে দুটি সংবাদপত্র জানো দৈনিক সংবাদপত্র হয়ে থাকে। দুটি সংবাদপত্রে আপনার সম্বন্ধে সংক্ষেপে কিছু লিখতে হবে, তার সাথে সাথে আপনার পিতা অথবা স্বামী সম্বন্ধে সম্পূর্ণ তথ্য দিতে হবে।

গ্যাজেটে নোটিফিকেশান:

নাম পরিবর্তন এর পরবর্তী পদক্ষেপ এবং শেষ পদক্ষেপ হলো আপনার নাম, আপনার রাজ্যের আধিকারিক রাজপত্র তে প্রকাশত করার প্রয়োজন পড়বে।

আপনার নাম আপনার রাজ্যের আধিকারিক রাজপত্র তে প্রকাশিত করতে হবে। আপনাকে আপনার সম্বন্ধে রাজ্যের সরকারি প্রেস এর সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে। ফরম পূরণ করার সাথে সাথে নির্ধারিত ফিস ভরতে হবে।

আপনার নাম পরিবর্তনের নোটিফিকেশন রাজ্যের আধিকারিক রাজপত্র তে প্রকাশিত করা হবে আর আপনার দ্বারা দেওয়া কাগজপত্রে পরিবর্তিত নামের কপি পাঠানো হবে।

এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার পর আপনার নাম পরিবর্তনের প্রক্রিয়া টি সম্পূর্ণরূপে সম্ভব অথবা সম্পন্ন হবে। এরপর আপনার নাম আধিকারিক হিসাব অনুসারে পরিবর্তন করা হবে, আর এরপরে আপনি আপনার সমস্ত কাগজপত্র নিজের নাম পরিবর্তন করতে পারবেন।

যেমন ধরুন প্যান কার্ড, মার্কশিট, ড্রাইভিং লাইসেন্স, আধার কার্ড এবং আরো অন্যান্য কাগজপত্র অথবা ডকুমেন্টস এ নিজের নাম পরিবর্তন করতে পারবেন।

এইজন্য আপনাকে বেশি কিছু করার প্রয়োজন পড়বে না। যার জন্য এই তিনটি প্রক্রিয়ায় সমস্ত রকম কাগজপত্র গুলো সঠিক ভাবে রাখতে হবে। আর এই কাজের জন্য খুবই কম সময় লাগে। বলতে গেলে কিছু সময়ের মধ্যে আপনি আপনার নাম পরিবর্তন করতে পারবেন।

তাছাড়া এখন বর্তমান যুগ অনেকটাই উন্নত। এই সমস্ত কাজের জন্য বেশ অনেকটাই হয়রানি কমে গিয়েছে। তার সাথে সাথে সময়ের অপচয় বেঁচেছে অনেকখানি।

তাই যদি আপনার একান্তই প্রয়োজন পড়ে নাম পরিবর্তনের জন্য, তাহলে কোনরকম চিন্তা ভাবনা ছাড়াই খুবই কম সময়ের মধ্যে নিজের নাম পরিবর্তন করতে পারবেন সমস্ত কাগজপত্র তে।

তাই অযথা ভয় পাওয়ার কোন কারণ নেই যে, অনেকটা সময় লাগতে পারে, বা অনেকটা ছোটাছুটি ও অনেক সমস্যার মধ্যে পড়তে হতে পারে।

Leave a Comment