করবা চৌথ 2023: করবা চৌথ এর উপবাস রেখেছেন? উপবাস ভাঙবেন কিভাবে জেনে নিন

করবা চৌথ এর উপবাস: করবা চৌথ এর সুন্দর মুহূর্ত চারিদিকের পরিবেশ থেকে শুরু করে বাড়ির পরিবেশও সুন্দর করে ফুটিয়ে তোলে। সকল বিবাহিত মেয়েরা এই দিন তাদের স্বামীদের জন্য এমন নির্জলা উপবাস রেখে এই করওয়া চৌথ এর ব্রত পালন করেন।

সারাদিন কিছু না খেয়ে খিদের মুখে অনেক কিছুই খেয়ে ফেলেন অনেকেই। আবার যারা প্রথম প্রথম এই ব্রত পালন করছেন তারা অনেকটাই কষ্ট সহ্য করেন।

করবা চৌথ এর ব্রত পালন করছেন, উপবাস রেখেছেন, সারাদিন কিছু না খেয়ে রয়েছেন, তবে উপবাস ভাঙ্গার পর আপনি যদি নিজের শরীর বুঝে না কিছু খেয়ে থাকেন, সেক্ষেত্রে আপনারই বিপদ। উপবাস রাখারও এমন কিছু নিয়ম রয়েছে যেগুলি না মেনে চললে আপনার শরীরে অনেকখানি ক্ষতি হতে পারে।

করবা চৌথ এর উপবাস রেখেছেন? উপবাস ভাঙবেন কিভাবে জেনে নিন
করবা চৌথ এর উপবাস রেখেছেন? উপবাস ভাঙবেন কিভাবে জেনে নিন

বাঙালি সমাজে করবা চৌথ খুব একটা প্রচলিত না হলেও, উত্তর ভারতে অত্যন্ত জনপ্রিয় এই উৎসবটি। হিন্দু বিবাহিত মহিলাদের এই ধর্মীয় অনুষ্ঠানটি সকলের কাছে খুবই জনপ্রিয়। স্বামীর মঙ্গল কামনায় সারাদিন নির্জলা উপবাস রাখেন তারা। সন্ধ্যের সময় চাঁদ দেখে তার পরেই স্বামীর হাতে জল পান করে এই উপবাস ভঙ্গ করেন।

সঠিক নিয়মে উপবাস ভঙ্গ করলে আপনার শরীর ও মন দুটোই ভালো থাকবে। অসুস্থ হয়ে পড়া থেকে রক্ষা পেতে পারেন আর যদি এগুলির না করে থাকেন, ইচ্ছামতো যা খুশি খেয়ে ফেলেন, তাহলে কিন্তু অসুস্থ হওয়া থেকে আপনাকে কেউ রক্ষা করতে পারবে না।

তো চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক, করবা চৌথ এর উপবাস ভঙ্গ করার সময় আপনাকে কোন কোন বিষয়ের প্রতি খেয়াল রাখতে হবে:

১) জল খাওয়া:

আমরা আগেই জেনেছি যে, এই ব্রত পালন করার জন্য উপবাস করার সংকল্প করার সময় মনে মনে বলে নিতে হয় যে, স্বাভাবিক কোনো উপবাস রাখবেন নাকি নির্জলা উপবাস রাখবেন। কেননা অনেকেই নির্জলা উপবাসে থাকতে পারেন না।

যদি স্বাভাবিক উপবাস রাখেন তাহলে মাঝেমধ্যে জল খাওয়ার চেষ্টা করুন। আর যদি নির্জলা উপবাস রাখেন তাহলে যখন উপবাস ভঙ্গ করবেন সেই সময় জল খেয়ে সেই উপবাস ভাঙতে পারেন।

শরীর যেন শুকিয়ে না যায় সেই দিকে খেয়াল রেখে দুধ, ফলের রস, অথবা আপনার পছন্দের যে কোন স্মুদিও খেতে পারেন।

তবে খুব বেশি কৃত্রিম মিষ্টি দেওয়া পানীয় খাওয়া চলবে না। কেননা সারাদিন শরীর কোন কিছু খাবার না পেয়ে হঠাৎ করে মিষ্টি পানিও খেলে তা উল্টো রিয়েকশন হতে পারে।

২) খেজুরের উপকারিতা:

খেজুর এমন একটি খাওয়ার জিনিস যা কিনা ড্রাই ফ্রুট এর মধ্যে পড়ে। এই খেজুর যেমন আমাদের শরীরের জন্য খুবই জরুরী, তেমনি এর কোন খারাপ দিক নেই বললেই চলে।

জল খাওয়ার পর খেজুর খেয়ে উপবাস ভাঙতে পারেন। উপবাস রাখার পর শরীরে যে খাবারের অভাব ঘটেছে সেটা ভরপুর মাত্রায় ভরিয়ে তুলতে পারে খেজুর। এক্ষেত্রে এর জুড়ি মেলা ভার।

সেই কারণেই খেজুর খেয়েই রমজান মাসে রোজা ভেঙে থাকেন মুসলিমরা। এছাড়া আরো অন্যান্য ড্রাই ফ্রুট যেমন ধরুন বাদাম, কিসমিস এগুলি আপনার পছন্দমত খেতে পারেন। যেগুলি আপনার শরীরে অনেকখানি অ্যান্টিঅক্সিডেন্টের প্রয়োজনীয়তা মেটাবে।

৩) হালকা রান্না:

সারাদিন উপবাস থাকার পর শরীর অনেকখানি শুকিয়ে আসে। সেই কারণে হঠাৎ করে কোন কড়া পাকের রান্না অর্থাৎ মশলাদার রান্না না খাওয়াই উচিত।

এক্ষেত্রে উপবাস রেখেছেন, উপবাস ভাঙ্গার পরে আপনাকে যে রান্না খেতে হবে, সেটা যেন অবশ্যই হালকা ধরনের হয়।

অনেকে নানা রকম শাকসবজি মেশানো হালকা ভাবে রান্না করার স্যুপও খেয়ে থাকেন উপবাস ভাঙ্গার পর। তাই উপবাস ভাঙতে হলে স্যুপ কিন্তু আপনার জন্য খুবই উপকারী।

৪) ফল খাওয়া যেতেই পারে:

ফল মানব শরীরে বিভিন্ন রকমের ভিটামিন, প্রোটিন তার সাথে সাথে আরো অনেক প্রয়োজনীয় উপাদানের ঘাটতি মেধায়। তাই করবা চৌথ ব্রত পালন করার পর উপবাস ভেঙে ফেলেছেন, তারপরে এই সময় আপনি আপনার পছন্দমত ফল খেতে পারেন।

তবে সেগুলি যেন খুবই সহজ পাচ্য হয়। সে ক্ষেত্রে ফলে থাকা প্রাকৃতিক মিষ্টি, ভিটামিন ও মিনারেল যা কিনা আপনার শরীরের খাদ্যের ঘাটতি মেটাবে। সহজেই হজম হয়ে যায়, এমন ধরনের ফল উপবাস ভাঙ্গার পরে আপনি খেতে পারেন।

৫) সবুজ শাকসবজি:

করবা চৌথ ব্রত পালন করার পর উপবাস ভাঙ্গার পরে আপনি যখন কোন খাবার গ্রহণ করবেন, সে ক্ষেত্রে সবুজ শাকসবজি আপনার পাতে রাখতে পারেন।

এটা যেমন আপনার হজমে সহায়তা করবে, তেমনি সারাদিন কিছু না খাওয়ার পর শরীরে হালকা কিছু খাবার পরলে সেটা সহজেই শরীর নিতে পারবে, আর আপনারও কোনরকম অসুবিধা হবে না।

এর পাশাপাশি শাকসবজিতে থাকা ভিটামিন আপনার শরীরকে আবার আগের মত সতেজ করে তুলবে।

৬) অতিরিক্ত ভাজাপোড়া নয়:

অনেকেই ভাজা জিনিস অথবা ভাজাপোড়া খাবার খেতে খুবই পছন্দ করেন। তবে করবা চৌথ ব্রত পালন করার পর তারপরে কোনমতেই কিন্তু আপনি এই গুলি খেতে পারবেন না।

অতিরিক্ত তেল অথবা ডিপ ফ্রাই করা কোন খাবার আপনাকে এড়িয়ে চলতে হবে। এক্ষেত্রে আপনার শরীরে অসুস্থতা বোধ হবে। উপবাস ভঙ্গ করার পর এইদিকে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে আপনাকে।

৭) কফি অথবা চা পান করবেন না:

এমনও শোনা যায় যে, অনেকেই আছেন চা অথবা কফির এতটাই নেশা হয়ে গিয়েছে যে সেগুলি না খেয়ে একেবারেই থাকতে পারেন না।

করবা চৌথ এর ব্রত পালন করেছেন, উপবাস রেখেছেন এবং উপবাস ভঙ্গ করেছেন তারপরে সোজা সাপটা গিয়ে এক কাপ চা অথবা কফি খেয়ে ফেললেন, এমনটা কিন্তু করা যাবে না।

কারণ এটি আপনাকে প্রচুর পরিমাণে জলশূন্য করে দিতে পারে।সারাদিনের যে কষ্টটা আপনি করেছেন তার উপরে যদি কফি অথবা চা পান করেন সেক্ষেত্রে কফি ও চায়ের মধ্যে থাকা ক্যাফেইন আপনার শরীরকে ড্রাই (শুষ্ক) করে তুলবে। তাই এই দিনটা অন্তত আপনার নেশা থেকে বিরত থাকুন।

⭐ সারাদিন উপবাস পালন করার পর আনন্দ উৎসবের পরে কখনোই কেউ চাইবেন না যে অসুস্থ হয়ে পড়ার জন্য। তাই উপবাস ভাঙ্গার পরে খাবার দাবারের উপরে বিশেষভাবে খেয়াল রাখা জরুরী। না হলে অসুস্থ হয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছেই।

যতটা হালকা খাবার খেতে পারবেন ততই আপনি সুস্থ থাকবেন। সকলের করবা চৌথ এর ব্রত সুস্থভাবে সম্পন্ন হোক। সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি আসুক প্রতিটি ঘরে, সমস্ত স্বামী স্ত্রীর দাম্পত্য জীবন হোক সুখ ও শান্তিতে ভরা।

Leave a Comment