জি এস টি (GST) কি? কিভাবে জি এস টি সাধারণ মানুষের সাহায্য করে

Goods and Services Tax in Bengali: জি এস টি কি? জি এস টি এর ব্যাবহার কিভাবে করা হয়? | জি এস টি এর কারণ সাধারণ মানুষের কিভাবে সাহায্য হয়? | জি এস টি কি? কিভাবে ব্যাবহার হয়? জানুন জি এস টি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য

বর্তমানে আমরা সকলেই জি এস টি সম্পর্কে কম বেশি জানি, কি তাই তো ! যে কোনো খাদ্য দ্রব্য থেকে শুরু করে ব্যবহৃত জিনিসপত্র এবং আরো অন্যান্য সেবামূলক কাজের ক্ষেত্রে জি এস টি যুক্ত করা হয়। জি এস টি অর্থাৎ ডিকোডিং গুড এন্ড সার্ভিসেস ট্যাক্স (Decoding Goods and Services Tax)।

বিভিন্ন রকমের ট্যাক্স এর কথা শোনা যায়, তেমনই জি এস টি হল কোন বস্তু এবং সেবা চিকিৎসা ক্ষেত্রে অপ্রত্যক্ষ ভাবে ট্যাক্স অথবা কর বলতে পারেন। এই ট্যাক্স প্রতিটি বস্তু এবং চিকিৎসা ক্ষেত্রে প্রতিটি জিনিসের উপরে তার মূল্যের উপরে লাগানো হয়ে থাকে।

আমরা যেকোনো জিনিস যখন বাজার থেকে কিনে থাকি কোনো ভালো বস্তু অথবা ব্যবহারের জিনিসপত্র, খাওয়ার জিনিসপত্র হোক সেটা উৎপন্ন থেকে শুরু করে বাজার পর্যন্ত আসার মধ্যে বিভিন্ন রকম পদক্ষেপের মধ্যে দিয়ে সেটি তৈরি হয়ে আসে, অথবা বিভিন্ন পদক্ষেপ পার করে আসে।

জি এস টি (GST) কি? কিভাবে জি এস টি সাধারণ মানুষের সাহায্য করে
জি এস টি (GST) কি? কিভাবে জি এস টি সাধারণ মানুষের সাহায্য করে

প্রথমে কিছু কাঁচামাল কেনার পর সেগুলো বিভিন্ন উপায়ে বিভিন্ন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে করে উৎপন্ন করে সেগুলিকে ব্যবহার উপযোগী তৈরি করার পর তারপর উপভোক্তা দের কাছে বিক্রি করা হয়। সে ক্ষেত্রে প্রতিটি পদক্ষেপে কর অথবা ট্যাক্স লাগানো হয়ে থাকে।

একটু উদাহরণ স্বরূপ বলা যেতে পারে, কোন ব্যক্তি যখন একটি গাড়ি তৈরি করার সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন, তখন বিভিন্ন রকমের কাঁচামাল কিনে যেমন ধরুন স্টিল, পেট্রোলিয়াম জাতীয় পদার্থ বা বস্তু, অন্য কোন ইঞ্জিন এবং গাড়ি বানানোর জন্য বিভিন্ন রকমের পার্টস ইত্যাদি। সেগুলো প্রথমে কিনতে হবে, তারপর সেই গাড়ির বডি বানানো শুরু করতে হবে।

এর সাথে সাথে যে সমস্ত কাঁচামাল গুলি কেনা হয়েছিল সেগুলি আস্তে আস্তে তার রূপ পরিবর্তন করতে থাকবে, এর সাথে রয়েছে সেই গাড়ি তৈরি হওয়ার পর পেইন্টিং, লেভেলিং, অ্যাসেম্বলি এর জন্য একটি নির্দিষ্ট জায়গায় পাঠানো হয়ে থাকে।

যেখানে গাড়ির সমস্ত কিছু দেখভাল করার পর গাড়ির মূল্য নির্ধারণ করা হয়। আর এই ক্ষেত্রে প্রত্যেক মূল্য বৃদ্ধির উপরে জি এস টি লাগানো হয়ে থাকে।

কেননা প্রথমে যখন কাঁচামাল কেনা হয় সেটা যেমন দাম থাকে তারপরে একটি গাড়ি সম্পূর্ণ রূপে যখন তৈরি হয়ে যায়, সে ক্ষেত্রে সেই কাঁচামালের দাম অনেকটাই বৃদ্ধি পায়। তাই সে ক্ষেত্রে প্রতিটি জিনিসের উপরে জি এস টি লাগানো হয়ে থাকে।

জি এস টি (GST) কিভাবে লাগানো হয় জিনিসপত্রের উপরে:

এ সম্পর্কে উদাহরণ স্বরূপ জানা যাক:- 

ধরা যাক কোন শার্ট এর নির্মাতা সুতো এবং আরো অন্যান্য কাঁচামাল কেনার জন্য বা ম্যাটেরিয়াল কেনার জন্য ১০০ টাকা খরচ করে থাকেন। এবার ধরা যাক ট্যাক্স এর মাত্রা ১০% কোনরকম লাভ অথবা ক্ষতি যদি না হয়ে থাকে তাহলে ট্যাক্স এর হিসাব অনুসারে ১০ টাকা দিতে হবে। সে ক্ষেত্রে সেই শার্টের তৈরীর জন্য খরচ পড়বে ১১০ টাকা।

হোলসেল ব্যবসায়ী শার্ট নির্মাতাদের কাছ থেকে শার্ট কিনে থাকেন এবং সে ক্ষেত্রে সেই শার্ট এর ওপরে ৪০ টাকা বৃদ্ধি করা হয়। তার সাথে সাথে @ ১০% ট্যাক্স এর জন্য খরচ করে থাকেন। আর সেই কারণে শার্টের তৈরীর ক্ষেত্রে সম্পূর্ণ খরচ গিয়ে দাঁড়াচ্ছে ১৬৫ টাকা (১১০+৪০=১৫০ টাকা, ১৫০ টাকার ১০% হলো=১৫ টাকা সুতরাং সবমিলিয়ে ১৬৫ টাকা।)

এরপর আসা যাক যারা খুচরা বিক্রেতা তারা এই হোলসেল ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে শার্ট কিনে থাকেন, সেক্ষেত্রে তাদের দাম দিতে হয় ১৬৫ টাকা এবং তাদের লাভ রাখার জন্য সেই ১৬৫ টাকা মূল্যের উপরে ৩০ টাকা আরও অতিরিক্ত যোগ করা হয়। এবার ট্যাক্স সমেত শার্ট এর খরচ পড়ছে ২১৪.৫ টাকা (১৬৫+৩০+ ট্যাক্স @ ১০%= ১৯৫+১৯.৫=২১৪.৫ টাকা)।

এই কারণে জি এস টি উপভোক্তাদের ট্যাক্স এর বোঝা কমিয়ে এই ট্যাক্স দেওয়ার বিষয়টি খুবই সহজ সরল করে দিয়েছে। তার সাথে সাথে এর মধ্যে দিয়ে ক্রেডিট এর লাভ ও পাওয়া যেতে পারে।

এক কথায় বলতে গেলে জি এস টি দুই গুন লাভ প্রদান করতে পারে। এই জি এস টি ট্যাক্সের কাস্টিং প্রভাব কে খুবই কম করে দিয়ে থাকে। আর ইনপুট ট্যাক্স এর ক্রেডিট এর অনুমতি দিয়ে জি এস টি ট্যাক্স এর চিন্তা অনেকটাই কম করে দেয়।

জি এস টি (GST) কে এতটা গুরুত্ব পূর্ণ কেন মনে করা হয়?

জি এস টি কে 1947 এর পর থেকে সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ ট্যাক্স অথবা কর এর সংশোধন বলা যেতে পারে যে কারণে, সেগুলি নিম্নলিখিত আলোচনা করা হলো:-

১) খুবই সহজ ভাবে ট্যাক্স দেওয়ার প্রক্রিয়া: বর্তমান সময়ে প্রতিটি জিনিসের উপরে জি এস টি লাগানোর মাধ্যমে সমস্ত ব্যবসা-বাণিজ্যের ওপর ভিত্তি করে ট্যাক্স খুবই সহজ ভাবে এবং নিয়মিত রূপে সরকার পেয়ে যেতে পারবে।

২) জিনিসপত্র বিক্রি করতে প্রভাবিত করে: যখন ঘরোয়া বাজারে উৎপাদনের খরচ কম হয়ে যায়, তখন ভারতীয় বস্তু এবং সেবা বিদেশি বাজারে অন্যান্য জিনিসের তুলনায় অনেকটা প্রতিযোগিতামূলক হয়ে পড়ে। আর এক্ষেত্রে এই জিনিসের বিক্রির জন্য অনেকটা সহযোগিতা পাওয়া যায়।

৩) প্রতিযোগিতামূলক মূল্য অথবা দাম: জি এস টি অন্যান্য সমস্ত রকমের অপ্রত্যক্ষ ট্যাক্সের ভূমিকা পালন করে থাকে। দামের ক্ষেত্রে যখন দাম ওঠা নামা করতে থাকে সে ক্ষেত্রে যখন জিনিসপত্রের দাম একেবারে নিম্নে চলে আসে, তখন জি এস টি থাকার মধ্যে দিয়ে কোম্পানি কখনোই ক্ষতির মুখে পড়বে না।

৪) সরকার রাজ্যের বিভিন্ন ক্ষেত্রে কাজে লাগাতে পারবেন: একটি সহজ সরল ট্যাক্স সঞ্চালনা থেকে খুবই সহজ ভাবে ট্যাক্স পাওয়া হবে, যেটা সরকার রাজ্যের উন্নতি সাধনে কাজে লাগাতে পারবে।

জি এস টি (GST) কিভাবে ভারত আর জনসাধারণের সাহায্য করতে পারে?

জনসাধারণের এ বিষয়ে কোনো রকম ধারণা নেই যে, যে তারা বর্তমান যে জিনিসপত্র কিনছেন তার উপরে কতটা ট্যাক্স ভরে চলেছেন ! যখন কোন কিছু কেনার পর আমাদের একটি বিল দেওয়া হয়ে থাকে, সে ক্ষেত্রে কিন্তু জিনিসপত্রের দাম এর সাথে সাথে জি এস টি যুক্ত থাকে। আর এই জন্য উপভোক্তা কে আজকের দিনে প্রত্যেক জিনিসপত্র কেনার ক্ষেত্রে প্রায় ২০% পর্যন্ত ট্যাক্স ভরতে হচ্ছে।

তবে এক্ষেত্রে জি এস টি এই বিষয়ে জন্য উপভোক্তার দু রকমের সাহায্য হতে পারে। সমস্ত ট্যাক্স কে একই সাথে যুক্ত করা হবে এবং কোন ট্যাক্স এর উপরে ট্যাক্স লাগানো হবে না।

তবে কিছু উৎপাদন জিনিসপত্র এবং চিকিৎসা ক্ষেত্রে বর্তমানে অনেক পরিমাণে জি এস টি দিতে হচ্ছে। যেমন ধরুন মোবাইল বিল ১৫% সেবা কর এর সাথে যুক্ত কিন্তু ১৮% পর্যন্ত দাম হয়ে থাকে, ২২% বর্তমান দামের উপর নির্ভর করে শ্যাম্পু, সাবান, আর কসমেটিকস জিনিসপত্রের উপরে। তার সাথে সাথে সৌন্দর্য প্রসাধনের উপর ২৮% পর্যন্ত ট্যাক্স লাগানো হয়েছে।

এছাড়া প্রয়োজনীয়তা অনুসারে অনেক জিনিস পত্রের ট্যাক্স অনেকটাই কম হতে পারে। যেমন ধরুন স্মার্টফোনের উপরের ১৩.৫% থেকে নামিয়ে ১২% হয়ে যেতে পারে।

এছাড়া পরিবহন ব্যবস্থার ক্ষেত্রে জি এস টি ৬% বর্তমান বাজার মূল্য হিসেবে ৫% হয়ে যাবে। আপনার মাসিক ঘর ভাড়ার উপরে কোনরকম জি এস টি ট্যাক্স লাগানো হয়নি, বলতে গেলে এর উপর থেকে এই ট্যাক্স সরানো হয়েছে অথবা ছাড় দেওয়া হয়েছে।

জি এস টি প্রায় কুড়িটি কেন্দ্রীয় ও রাজ্য ট্যাক্স যেমন কারখানা গেট, কর্তব্য সেবা এবং স্থানীয় ট্যাক্সের জায়গা নিয়ে নেবে।

জনসাধারণের প্রতি নিয়ত প্রতিমুহূর্তে রান্নার জিনিসপত্র থেকে ব্যবহারের জিনিসপত্র, পোশাক, কসমেটিক্স এবং আরো অন্যান্য দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহৃত জিনিসের উপরে জি এস টি এখন সাধারণ বিষয়।

তাই জনসাধারণ নিজের অজান্তেই সমস্ত জিনিসের উপরে ট্যাক্স দিয়ে চলেছেন। আর জি এস টি (GST) ব্যবসা-বাণিজ্যে কে অনেকটাই সহযোগিতা করেছে। তার সাথে সাথে রাজ্যের উন্নতি সাধনে কাজে এসেছে।

Leave a Comment