ধনতেরাস 2023: নিজের সৌভাগ্য ফিরিয়ে আনতে বাড়িতে আনুন এই জিনিস গুলি

ধনতেরাস মানেই দীপাবলী একেবারে কাছে চলেই এসেছে। আর এই ধনতেরাস প্রতিটি বাঙালি হিন্দু পরিবারে অনেক শুভ জিনিসের আগমন ঘটায়। কার্তিক মাসের কৃষ্ণপক্ষের ত্রয়োদশী তিথি ধনতেরাস হিসেবে উদযাপন করা হয়। ভারতীয় সংস্কৃতি এবং সনাতনী বিশ্বাস অনুসারে এই দিন বিশেষ কিছু জিনিস কেনা যেমন শুভ বলে মনে করা হয়, তেমনি সেগুলি জীবনে অনেক সৌভাগ্য বয়ে নিয়ে আসে।

এই দিন থেকে শুরু করে পাঁচ দিন পর শুরু হয় দীপাবলি উৎসব অর্থাৎ কালী পূজা। ধনতেরাসের দিনে কেনাকাটার একটা প্রবণতা থাকেই সকলের মধ্যে। বিশ্বাস করা হয় যে, এই দিনে কেনাকাটা করলে ঘরে সুখ, শান্তি সমৃদ্ধি এবং সমৃদ্ধির বৃদ্ধি ঘটে। তাছাড়া কোন কোন জিনিস আপনাকে কিনতে হবে এই ধনতেরাসের শুভ ক্ষণে সেটা কিন্তু ভালো করে জানা জরুরি।

ধনতেরাস: নিজের সৌভাগ্য ফিরিয়ে আনতে বাড়িতে আনুন এই জিনিস গুলি
ধনতেরাস: নিজের সৌভাগ্য ফিরিয়ে আনতে বাড়িতে আনুন এই জিনিস গুলি

তবে সাধারণত বেশিরভাগ মানুষ সোনা, রুপো এবং বাসনপত্র কিনে থাকেন। তবে শাস্ত্রমতে যাই কেনাকাটা করা হোক না কেন, ধনতেরাসের দিনে যে জিনিসগুলি অবশ্যই আপনাকে বাড়িতে কিনে নিয়ে আসতে হবে, যেগুলি আপনার বাড়িতে সমৃদ্ধির আশীর্বাদ বয়ে নিয়ে আসবে।

তো চলুন তাহলে জেনে নেওয়া যাক, এমন কোন জিনিস আপনি ধনতেরাসের এই শুভক্ষণে বাড়িতে আনবেন, যার ফলে আপনার সৌভাগ্য ফুলে ফেঁপে উঠবে:

১) রুপোর কয়েন অথবা রুপোর কোন বস্তু:

ধনতেরাসের তিনে সোনা, রুপোর কেনা খুবই শুভ বলে মনে করা হয়। আর যদি আপনি রুপোর গয়না কিনতে চান সেক্ষেত্রে তাও করতে পারেন অথবা অনেকেই রুপোর মুদ্রা কিনে থাকেন।

রুপোর কয়েন
রুপোর কয়েন

এই মুদ্রা কিনতে আপনার খুব বেশি একটা খরচ হবে না এবং বাড়ির জন্য খুবই শুভ ও সংসারে উন্নতি সাধনে এই কয়েন অনেকখানি সহযোগিতা করে। তাছাড়া দীপাবলিতে দেবী লক্ষ্মীর আরাধনা করা হয়। তাই আপনি এমন রুপোর কয়েন কিনুন যে কয়েনে দেবী লক্ষ্মী এবং গণেশ মূর্তির ছবি রয়েছে। পূজার সময় এই মুদ্রার পূজা করা হয়।

সে ক্ষেত্রে ধনতেরাসে যদি আপনি এই মুদ্রা কিনে থাকেন তাহলে খুবই শুভ হবে আপনার এবং আপনার পরিবারের সকলের জন্য। আবার যাদের একটু অবস্থা ভালো রয়েছে, তারা কিন্তু এই দিন রুপোর তৈরি কোন বাসনপত্র অথবা প্লেট, বাটি কিনে থাকেন, যা অত্যন্ত শুভ বলে মনে করা হয়।

২) পিতলের বস্তু:

প্রতিটি পূজা পার্বণে পিতলের বস্তু ও পিতলের থালা-বাসন এগুলি কিন্তু খুবই প্রয়োজন পড়ে। আর এগুলি খুবই শুভ বলেও মনে করা হয়। ধনতেরাসের দিনে প্রত্যেক ব্যক্তি সোনার জিনিস অথবা রুপোর জিনিস কিনতে পারবেন এমনটা কিন্তু নয়।

পিতলের বস্তু
পিতলের বস্তু

যারা সোনা রূপা কিনতে পারবেন না তারা কিন্তু এই ধনতেরাসের দিনে পিতলের থালা-বাসন এবং পিতলের তৈরি কোন কিছু কিনতে পারেন।

ধনতেরাসের দিন ভগবান ধন্বন্তরীর পূজা করা হয়। এটা বিশ্বাস করা হয় যে, সমুদ্র মন্থনের সময় ভগবান ধন্বন্তরি যখন অবতারণা করেছিলেন তখন তিনি এক হাতে অমৃত ভরা একটি পিতলের কলসি বহন করেছিলেন, বাকি অংশে অন্যান্য জিনিসপত্র ছিল।

আর সেই কারণে এই ধনতেরাসের শুভ দিনে পিতলের পাত্র কেনা অত্যন্ত শুভ বলে মনে করা হয়। সেটা ছোট কোন পাত্র হলেও চলবে। যেটা আপনার সাধ্যের মধ্যে আপনি কিনতে পারবেন। এই পিতলের পাত্রটি কেনার পর এতে কিছু চাল অথবা কোন মিষ্টি জাতীয় জিনিস রাখুন এবং ঘরে নিয়ে আসুন, পাত্র টি খালি কখনোই আনবেন না।

৩) ধান অথবা শস্য: 

শস্য শ্যামলা আমাদের এই চারিদিক, যার ফলে আমরা সারা বছর খেয়ে বেঁচে থাকতে পারি। আর ধান হলো এমন একটি শস্য যা কিনা সংসারে সম্পদ বৃদ্ধি করার প্রতীক।

ধান অথবা শস্য
ধান অথবা শস্য

এটি সৌভাগ্য এবং সমৃদ্ধির প্রতিক হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ধনতেরাসের দিন বাড়িতে ধান কিনে নিয়ে আসতে পারেন, সে ক্ষেত্রে ঘরের সম্পদ বৃদ্ধি পায় বলে মনে করা হয়।

৪) ঝাড়ু:

ঘর পরিষ্কার করার ক্ষেত্রে ঝাড়ু আমাদের সকলেরই প্রয়োজন পড়ে। আর ঝাড়ু কে দেবী লক্ষ্মীর রূপ বলে মনে করা হয়। ঘর থেকে দারিদ্রতা দূর করতে সাহায্য করে ঝাড়ু।

ঝাড়ু
ঝাড়ু

ধনতেরাসে আপনাকে অবশ্যই একটি ঝাড়ু কিনতে হবে, দীপাবলিতে বাড়ির ময়লা দূর করতে এই ঝাড়ু ব্যবহার করুন যাতে সংসারের সকল অমঙ্গল দূর হয়ে সংসারে যেন সুখ, শান্তি, সমৃদ্ধি বিরাজ করে সর্বদাই। তাই ধনতেরাসের দিন বাড়িতে ঝাড়ু নিয়ে আসতে ভুলবেন না কিন্তু।

৫) শ্রী যন্ত্র:

শ্রী যন্ত্র এমন একটি যন্ত্র যা কিনা মা লক্ষ্মীর খুবই প্রিয় একটি বস্তু। এই শুভ দিনে বাড়িতে শ্রী যন্ত্র কিনে আনতে পারেন অথবা দীপাবলির দিন এটি কে পূজা করতে পারেন।

শ্রী যন্ত্র
শ্রী যন্ত্র

যদি ঘরে আগে থেকেই আপনার শ্রী যন্ত্র কেনা থাকে তাহলে ধনতেরাসের দিনের লক্ষ্মী ও গণেশের মূর্তি কিনে দীপাবলির দিন পূজা করুন। যাতে আপনার সংসারে সুখ, শান্তি, সমৃদ্ধি বৃদ্ধি পাওয়ার পাশাপাশি ধন-সম্পদে ভরে ওঠে।

৬) গোমেদ / গোমতী চক্র:

প্রতিটি সংসারে সুখ, শান্তি, সমৃদ্ধি তখনই আসে যখন পরিবারের সকলেই সুস্থ স্বাভাবিক থাকেন এবং সকলেই খুবই শান্ত ও ধীরস্থির প্রকৃতির হয়ে থাকেন।

গোমেদ / গোমতী চক্র
গোমেদ / গোমতী চক্র

কেননা লক্ষ্মী শান্ত প্রকৃতি খুবই পছন্দ করেন। সমৃদ্ধ ও সুখী হতে পারে, যখন সেই পরিবারের সকলেই ভক্তি ভরে পূজা-অর্চনা করে থাকেন এবং সুস্থ সবল থাকেন।

তাই সুস্থ থাকার জন্য ১১টি গোমেদ চক্র কিনতে পারেন। তার সাথে সাথে ধনতেরাসের দিন সেগুলি বাড়ি নিয়ে আসুন। এরপরে একটি হলুদ কাপড়ের সেটি বেঁধে রাখুন।

এর ফলে আপনার বাড়ির লোকজন সর্বদাই সুস্থ থাকবেন এবং পরিবারে আসবে সুখ, শান্তি এবং সমৃদ্ধি। অন্যান্য শুভ জিনিস কেনার পাশাপাশি ধনতেরাসের এই শুভক্ষণে গোমেদ চক্র কিনতে কিন্তু ভুলবেন না।

৭) ধনেপাতা বীজ:

ধনতেরাসের এই শুভ দিনে ধনে/ধনেপাতা বীজ অবশ্যই কিনে আনতে হয়। তারপর দীপাবলির দিনে দেবী লক্ষ্মী কে সেটি নিবেদন করে আপনার বাড়ির বাগানে অথবা কোন টবে বা কোনো পাত্রে মাটিতে সেটি ছড়িয়ে দিন।

এর ফলে বিশ্বাস করা হয় যে, এই ধনেপাতা বীজ থেকে যে ধনিয়া পাতা অর্থাৎ ধনেপাতা বলা হয় যাকে, সেটি আপনার ঘরে সুখ এবং সমৃদ্ধি নিয়ে আসবে।

৮) শঙ্খ অথবা শাঁখ:

শঙ্খ প্রতিটি পূজা পার্বণে একটি শুভ জিনিস এবং যদি এটি আপনি ধনতেরাসের এই দিনে কিনে আনেন বাড়িতে, তাহলে মা লক্ষ্মী নিজেই গৃহস্থের বাড়িতে প্রবেশ করেন এই শঙ্খের সাথে সাথে, এমনটা মনে করা হয়। আর তাই তো ধনতেরাসের দিনে শঙ্খ কিনে থাকেন অনেকেই।

৯) কড়ি:

প্রায় প্রতিটি পূজায় কড়ি প্রয়োজন পড়ে। তবে ধনতেরাসের দিন অবশ্যই কয়েকটা কড়ি কিনে লাল কাপড়ে মুড়ে আপনার টাকা পয়সা ও সোনা গয়না রয়েছে এমন লকারে রেখে দিলে, ধন-সম্পত্তির অভাব হয় না সারা বছর। বলতে গেলে সু-সমৃদ্ধি আসে ধনসম্পদে।

১০) লক্ষীর পাদুকা, ঋদ্ধি সিদ্ধি চিহ্ন যুক্ত স্টিকার :

ধনতেরাসের দিন লক্ষ্মীর পাদুকা, শুভ লাভ, স্বস্তিক চিহ্ন, ঋদ্ধি সিদ্ধি চিহ্নযুক্ত স্টিকার

লক্ষীর পাদুকা, ঋদ্ধি সিদ্ধি চিহ্ন যুক্ত স্টিকার
লক্ষীর পাদুকা, ঋদ্ধি সিদ্ধি চিহ্ন যুক্ত স্টিকার

এগুলি কিনে ঘরের ঠাকুর ঘর, দরজা এবং যে আলমারিতে আপনি আপনার টাকা পয়সা, গয়না রেখেছেন সেখানে যদি লাগাতে পারেন তাহলে মা লক্ষ্মীর কৃপা পাবেন সারা বছর।

১১) ইলেকট্রিক জিনিস:

ধনতেরাসের দিন যে কোন ইলেকট্রিক জিনিস কেনাটাও শুভ বলে মনে জানা যায়। যেমন ধরুন ফ্রিজ, ওভেন, ল্যাপটপ, মোবাইল, ইলেকট্রনিক্স ওভেন, এছাড়া আরো অন্যান্য যেগুলো ইলেকট্রনিক জিনিস রয়েছে সেগুলোর মধ্যে যেকোনো কিছু আপনি আপনার সাধ্যমত কিনে আনতে পারেন।

ইলেকট্রিক জিনিস
ইলেকট্রিক জিনিস

এখানে একটা কথা বলে রাখা জরুরী যে, ধনতেরাসে যে জিনিসপত্র গুলি আপনি কিনছেন সেগুলি ঠিক মতো রাখা হচ্ছে কিনা সেটাও কিন্তু দেখা জরুরী। জিনিসপত্র গুলি কেনার পর বাড়ির উত্তর-পূর্ব কোণে রাখতে পারেন।

১২) সোনার গয়না:

সোনার গয়না অথবা রুপোর কোন কিছু খুবই শুভ প্রতিটি উৎসবে। তবে ধনতেরাসে আরও বেশি করে কেনাকাটা করা হয় সোনা, রুপা।

সোনার গয়না
সোনার গয়না

অনেকেই সারা বছর ধরে অপেক্ষা করে থাকেন এই দিন সোনার গয়না কেনার জন্য অথবা তৈরি করার জন্য। আর সেই কারণে প্রতিটি সোনার দোকানে ধনতেরাসের দিন বিশেষ ছাড় দেওয়া হয়।

শুভ হলেও সকলের জন্য সোনার গয়না কেনা সম্ভব হয়ে ওঠে না, তবে শুধু যে ভারী গয়নাই কিনতে হবে এমন কোন মানে নেই। আপনি সোনা অথবা রুপোর গয়না ছোট্ট হলেও আপনার সাধ্যের মধ্যে কিনতে পারেন। এর মাধ্যমে আপনি ঘরেতে মা লক্ষ্মীকে আনবেন।

⭐ ধনতেরাস উপলক্ষে এই সমস্ত কেনাকাটা গুলি আপনার জীবনের গতিপ্রকৃতি অনেক খানি ঘুরিয়ে দেবে। সংসারে আসবে সমৃদ্ধি, তেমনি সকল ইচ্ছা পূরণ করার জন্য আপনার সাধ্যের মধ্যে যা কিছু শুভ রয়েছে এই ধনতেরাসের দিনে কেনাকাটা, সেগুলির মধ্যে যে কোন কিছু আপনি কেনাকাটা করতে পারেন।

তবে অবশ্যই সেটা যেন আপনার পছন্দের এবং সাধ্যের মধ্যে হয়। দেবী লক্ষ্মী, গণেশ এবং কুবেরের সাথে সাথে ধন্বন্তরীর পূজাও করা হয়। এই ধনতেরাসের দিন বাড়িতে বাড়িতে সকলেই এই উৎসবে মেতে ওঠেন।

Leave a Comment