West Bengal Government Schemes News, Bangla Bhumi

West Bengal Government Schemes News, Startup Business News of West Bengal, Khatian and Plot Information of West Bengal

মোদী জানিয়েছেন ২১ দিন লোকডাউন না মানলে ২১ বছর পিছিয়ে পড়বে সারা দেশ - হবে খারাপ দুর্দশা

আমরা জনগণদের জাগরুক করার উদ্দেশ্যে "করোনা" শব্দের মানে বাংলাতে বোঝাবার চেষ্টা করেছি 

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আজ (২৪ মার্চ ২০২০) রাত ৮:০০ টায় সকল দেশবাসীকে জানিয়েছেন যে আজ (২৪ মার্চ ২০২০) রাত ১২:০০ টা থেকে সারা দেশ ২১ দিনের জন্য (৩ সপ্তাহের জন্য) লকডাউন করে দেওয়া হয়েছে। আজ প্রধানমন্ত্রী সকল দেশবাসীর উদ্দেশ্যে বলেছেন ২১ দিনের এই লকডাউনে কোনো ব্যাক্তি নিজের বাড়ি থেকে যেন না বের হয়, উনি এটাও জানিয়েছেন যে যদি এই ২১ দিন সকল মানুষ নিজেদের ঘরবন্দি না করে তাহলে সারা দেশ ২১ বছর পিছিয়ে পড়বে আর দেশের দুর্দশা প্রচন্ড খারাপ হয়ে যাবে। তার সাথে হবে ভাইরাসের মহামারী আর প্রচুর পরিমানে মানুষের মৃত্যু।

এই লোকডাউন কঠিন ভাবে পালন করতে হবে :
প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন যে সমস্ত রাজ্যকে ২১ দিনের লকডাউন কঠোর ভাবে চালু করার আর যারা এই লকডাউন না মেনে চলবে ওপর আইনত ব্যবস্থা নিতে। এই লকডাউন উল্লঙ্ঘন করলে জরিমানা বা জেলের শাস্তি অথবা দুটি একসাথে হতে পারে। জনস্বার্থে আর দেশের নাগরিকদের এই করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচানোর জন্য এই লকডাউন করা হচ্ছে।

কবে থেকে লকডাউন শুরু করা হয়েছে ?
কার্ফুয়ের সময় : আজ রাত ১২:০০ থেকে (২৪ মার্চ ২০২০ থেকে)
আপাতত এই লক ডাউন - ৩ সপ্তাহের জন্য মানে ২১ দিনের জন্য লাগানো হয়েছে।
যেহেতু এই লকডাউন ২১ দিনের লম্বা একটি সময় ধরে লাগানো হয়েছে সেক্ষেত্রে এই লকডাউনে সমস্ত দরকারি কাজে ছাড় দেওয়া হয়েছে যাতে সাধারণ মানুষের অসুবিধা না হয়। নিচে দেখা হয়েছে এই লকডাউনে কি কি ছাড় দেওয়া হয়েছে।
LIVE CORONAVIRUS REPORTS - WORLD WIDE →
২১ দিনের লকডাউনে, ছাড় পাবেন কী কী ?
♦️ খাদ্রপদার্থ, শাক সব্জি, মুদিখানা, ফল, মাছ, মাংস, দুধ ও পাউরুটি বিক্রয় কে ছাড় দেওয়া হয়েছে। এই ধরণের কাজের পরিবহন ও মজুত কেউ ছাড় দেওয়া হয়েছে।
♦️ওষুধপত্রের দোকান, ওষুধ উৎপাদন ও এর পরিবহন চালু থাকবে এছাড়া চশমার দোকান কেউ ছাড় দেওয়া হয়েছে।
♦️সমস্ত স্বাস্থ্য পরিষেবার ছাড় দেওয়া হয়েছে।
♦️হাসপাতাল ও অন্যান্য আপৎকালীন সময়ে ব্যবহার করি গাড়ি যেমন যাত্রীবাহী গাড়ি ও মালগাড়ি ছাড় দেওয়া হয়েছে।
♦️পানীয় জলের সরবরাহ, বিদ্যুৎ পরিষেবা ও জঞ্জাল ওঠানোর কাজে ছাড় দেওয়া হয়েছে।
♦️পেট্রোল পাম্প, এলপিজি গ্যাসের সার্ভিস, জ্বালানি তেলর দোকান এবং এই পরিষেবার সংস্থানগুলি ও পরিবহনকে ছাড় দেওয়া হয়েছে।
♦️ইন্টারনেট সার্ভিস, টেলিকম সার্ভিস এবং তথ্যপ্রযুক্তি সার্ভিসগুলি ছাড়ের মধ্যে রাখা হয়েছে।
♦️মুদিখানার জিনিসপত্র ও খাবারের হোম ডেলিভারি ও অনলাইন শপিং করা ছাড়ের মধ্যে রাখা হয়েছে।
♦️ব্যাঙ্ক ও ব্যাংকার এ.টি.এম গুলি চালু থাকবে।
♦️দমকল, আপৎকালীন পরিষেবা ও অসামরিক প্রতিরক্ষা পরিষেবা গুলি চালু থাকবে।
♦️পুলিশ, সশস্ত্র বাহিনী ও অধসেনা গুলি নিয়মিত চলবে।
♦️সংবাদ মাধ্যম গুলি, ডিজিটাল ও পেপার ছাড়ের মধ্যে রয়েছে।
♦️আদালত ও সংশোধনাগার বিভাগ ও কানুন সম্মন্ধি কাজ চালু থাকবে।

প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন এই লকডাউন এক প্রকারের কার্ফুয়ের মত তাই কঠিন ভাবে এই লকডাউন মেনে চলতে হবে না হলে শাস্তি দেওয়া হবে। এই লকডাউনের সময় দেশের কোনো ব্যক্তি বাড়ির বাহিয়ে না যায় এই কথা নরেন্দ্র মোদী বলেছেন।
Comment on This News.