Dwarkanath Tagore (1794-1846) Grand father of Rabindranath Tagore

Dwarkanath Tagore (1794-1846)
Grand father of Rabindranath Tagore
Married to Digambari Devi in 1809


Born  in 1794. Dwarkanath was only thirteen years old when the uncle who had adopted him died. Leaving him a moderate  estate.  On this modest basis. Dwarkanath built up in course of time  a  fabulous  fortune. Prince, however, he came to be called. In the heart of Calcutta in the quarter known as Jorasanko  the family mansion of the Tagore’s still stands, now transformed into a national  monument, a museum and a university,  name after Dwarkanath’s illustrious grandson, the poet Robindranath Tagore. No less lavish and extravagant were Dwarkanath’s  public charities. There was no public institution or cause to which he did not give generously. Today as one ascends the step of the national library in at the entrance, a graceful acknowledgement of the debt which the city, once the metropolis of India, owed to his leadership and munificence. He helped in the development of the first centre of modern education in India, the Hindu college, established in 1816. Which later London on 1 august 1846, at age of fifty-two.


দ্বারকানাথ ঠাকুর (১৭৯৪-১৮৪৬) 
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ঠাকুরদাদা 
দিগম্বরীর দেবীর সঙ্গে বিবাহ ১৮০৯-এ

এই দম্পতির ৫ সন্তান। সে-যুগের অত্যন্ত সফল ব্যবসায়ী। তাঁরই উদ্যোগে ব্যবসার স্বার্থে ভারতবর্ষে রেল পরিষেবার সূত্রপাত হয়েছে এমন কথা শোনা যায়। জাহাজে মাল পরিবহন এবং জাহাজ সারইয়ের কারখানাও তাঁর কোম্পানির উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত হয়। খিদিরপুরে সেই কারখানা খ হয়েছিল ১৮৩৭ নাগাদ। তবে শুধু ব্যবসা নয়, সমাজসেবাতেও তাঁর প্রভূত অবদান রয়েছে।সমাজ-সংস্কারক রাজা রামমোহন রায়ের সংস্পর্শে আসবার পরে তাঁরা, বয়সের ব্যবধান সত্ত্বেও, দেশীয় সমাজের উন্নতিকল্পে একত্রে বহু উদ্যোগ গ্রহন করেছিলেন। হিন্দু কলেজ প্রতিষ্ঠা, পাশ্চাত্য চিকিত্সাবিদ্যায় এমন কী সেই ১৯ শতকে শবব্যবছেদে দেশীয় ছাত্রদের আনুপ্রানিত করা, হিন্দু সমাজের সংস্কার এবং সতীদাহপ্রথা বিলোপের সমর্থন করা তার মধ্যে কতিপয় দৃষ্টান্ত। ১৮৪৬এর ১ অগস্ট লন্ডনের নিকটবর্তী সারে-তে পরলোক গমন করেন। সেখানেই তাঁকে সমাধিস্থ কয়া হয়। দিগম্বরী দেবী ১৮৩৯ সালেই মারা যান।