Nari Spondoner Tartomya in Bangla : About variation of pulse in Bengali Language

Nari Spondoner Tartomya in Bangla : About variation of pulse in Bengali Language
Nari Spondoner Tartomya in Bangla : About variation of pulse in Bengali Language 
নাড়ী স্পন্দনের তারতম্যঃ

বিভিন্ন সময় বা বিভিন্ন কারণে নাড়ীর স্পন্দন আলাদা আলাদা হয়ে থাকে এই ধরণের বিভিন্ন স্পন্দন কে নাড়ীর স্পন্দনের তারতম্য বলা হয় । নিচে বিভিন্ন তারতম্যের ব্যাখ্যা করা হয়েছে । 

(ক)সুস্থ ব্যাক্তির নাড়ী- কেঁচোর মতো ধীরে ধীরে সপ্নদিত হয়, স্পন্দনে কোনোরকম জড়তা অনুভূত হয় না। সাধারণঃ প্রাতঃকালে নাড়ী স্নিগ্ধ, মধ্যাহ্নে উষ্ণ এবং অপরাহ্নে দ্রুতগতি সম্পন্ন হয়ে থাকে।

(খ)রোগগ্রস্ত ব্যক্তি নাড়িঃ 

(১)বায়ুপ্রভাবিত রোগীর নাড়ী বক্রগতি সম্পন্ন, সর্বসদৃশ বাঁকা গতিতে সঞ্চরমান।

(২)পিত্ত কুপিত রোগীর নাড়ী লম্ফমান-কাক বা ভেক সদৃশ লাফিয়ে লাফিয়ে চলে।

(৩)কফ প্রভাবিত রোগীর নাড়ী স্থির গতি সম্পন্ন, হাঁস বা কাপোতের মতো মৃদু-মন্দ সঞ্চারমান।

(৪)রোগীর মধ্যে বায়ু ও পিত্তের প্রকোপ বাড়লে নাড়ীর গতি সাপ ও ব্যাঙের মতো বাঁকা ও চঞ্চল হয়।

(৫)পিত্ত ও শ্লেষ্মার আধিক্য ঘটলে কখনও সাপ বা কখনো হাঁসের মতো নাড়ী মন্দগতি সম্পন্ন হয়।

(৬)বায়ু ও শ্লেষ্মার আধিক্য ঘটলে নাড়ীর গতি কখনো সাপের মতো বক্রগতি সম্পন্ন বা রাজহাঁসের মতো মৃদু-মন্দ গতি সম্পন্ন হয়ে থাকে।

(৭)সন্নিপাতজনিত কারণে নাড়ী ত্রিদোষযুক্ত হলে নাড়ী চঞ্চল ও উষ্ণ হয়। কখনো ভীষণ প্রকম্পিত, কখনো ভীতযুক্ত বা কখনো চলমান অবস্থায় স্তব্ধ হয়ে যায়।

নাড়ীর মাধ্যমে মৃত্যু সংকেত জানা যায়ঃ 

বায়ুতে দূষিত, পিত্ত দগ্ধ এবং কফে কুপিত মৃত্যু সংকেত দেয়। যদি প্রথমে নাড়ীর স্পন্দন বায়ুলক্ষণযুক্ত সাপের মতো গতিযুক্ত হয় এবং তারপরেই পিত্ত লক্ষণ জনিত ভেকগতি সদৃশ লম্ফমান হয় এবং তারও পরে কফ জনিত হংস প্রভিতির গতিজনিত মৃদুমন্দ হয় তবে রোগ নিরাময় সুসাধ্য। কিন্তু ওলট-পালট বা বিশৃঙ্খলা অনুভূত হলে রোগ নিরাময় একরকম অসম্ভব।